‘ইতিহাসে থাকবেন জিয়া, এ নাম মুছবার নয়’

শহীদ প্রেসিডেন্ট মেজর জিয়ার খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত

সৈয়দ মুহাম্মদ রিফাত

সিদ্ধান্ত হয়েছে, মেজর জিয়াউর রহমানের রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিলের। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের এক সভায় বিএনপির এ প্রতিষ্ঠাতার খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়। সেই সেক্টর কমান্ডারের খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত কোনভাবেই মানতে পারছে না নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। নেতাকর্মীরা বলছেন, মেজর জিয়া থাকবেন ইতিহাসে। এ নাম কখনো মুছবার নয়।

ক্ষোভ প্রকাশ করে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনি সংবাদচর্চার এ প্রতিবেদককে বলেন, এটা ক্ষমতার অপব্যবহার। আমি এমন সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানাই ছাত্রদলের পক্ষ থেকে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পর একজন সেক্টর কমান্ডারের বীর উত্তম খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ছাড়া আর কিছুই নয়। রনি বলেন, বাংলার মানুষ জানে মেজর জিয়া কি ছিলেন, কে ছিলেন। এগুলো করে স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমানকে ইতিহাস থেকে মুছে ফেলা যাবে না।

নিন্দা জানিয়ে মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ সভাপতি এডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, এই সরকারের দুঃশাসন সম্পর্কে মানুষ অবহিত। জণগন জানে তারা ক্ষমতার অপব্যবহার করে পূর্বে কি করেছে। এখন সিদ্ধান্ত এসেছে মেজর জিয়ার রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিলের। অথচ, এই খেতাব তাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পিতা শেখ মুজিবর রহমানই দিয়েছিলেন। এখন তার সরকারের অধীনে খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়! সাখাওয়াত বলেন, এগুলো করে ইতিহাস মুছে ফেলা যাবে না। স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় শাসক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বীরউত্তম, এটাই সত্যি।

সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে জেলা বিএনপি সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেন, মেজর জিয়াউর রহমান একটি আদর্শের নাম। কালুরঘাট বেতারকেন্দ্র থেকে তার বলা, ‘আমি মেজর জিয়া বলছি’ এই কথাটুকুই যথেষ্ট। মানুষ জানে স্বাধীনতার ঘোষণা কে দিয়েছেন। জিয়াউর রহমান কিভাবে রণাঙ্গনে লড়াই করতে হয় যেমন দেখিয়েছেন, তেমনি দেখিয়েছেন লড়াই শেষে কিভাবে দেশ গড়তে হয়। জিয়া-ই বাংলাদেশ।

সম্প্রতি, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মুক্তিযোদ্ধার খেতাব বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) ৭২তম সভায় তার রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিলের সুপারিশ করা হয়। সূত্রমতে, মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য স্বাধীনতার পর জিয়াউর রহমানকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ‘বীর উত্তম’ খেতাব দেয়া হয়। জামুকার সুপারিশ অনুযায়ী, এখন তার খেতাব বাতিল করে গেজেট জারি করা হবে।

Read Previous

না.গঞ্জের সোনারগাঁয়ে অন্তঃসত্ত্বা নারী সহ আহত ৭

Read Next

তল্লার বেলতলীতে আবারো গুল্লি জনির রমরমা মাদক ব্যবসা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *